বাংলাদেশ

স্বামী হত্যা

স্বামীকে পিটিয়ে হত্যা করলো তার স্ত্রী !

চট্টগ্রাম-হাটহাজারীতে স্বামীকে পিটিয়ে হত্যা করলো স্ত্রী

চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার নাঙ্গলমোড়া ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড হেদায়াত আলীর বাড়ীর মরহুম রাজা মিয়ার সওদাগরের ছোট ছেলে এম সেলিম উদ্দিন (৪৫)কে তাঁর স্ত্রী কুনছুমা সিদ্দীকা প্রিয়া (৩০) নিজ হাতে সুপারি গাছের পালা দিয়ে শরীরে বিভিন্ন স্থানে দৌড়য়ে দৌড়িয়ে পিঠিয়ে শরিলের বিভিন্ন স্থানে রক্ত করে আহত করে। আহত সেলিমকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে উপজেলার স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্মরত ডাক্তার মৃত বলে ঘোষণা করে।

নিহতের বোন পারভিন প্রতিবেদক জানায়,আমার ভাই গত সাত দিন ধরে টাউনে আমার বাসায় ছিল।বউয়ের অত্যাচারে নিঘুম রাত্রিযাপন করত আমার ভাই। দীর্ঘদুই বছর হলো আমার ভাই দেশে ফিরেছে।দেশে আসার পর থেকে আমার ভাইয়ের বউয়ের অত্যাচারীরে সীমা ছিল না। ঘর থেকে বাহির করে দিয়ে আমার ভাইকে খুঁড়ে ঘরে থাকতে দেয়া হয়েছে দেড় বছর ধরে।

রাতে বাসায় ঢুকলে দা-কিরিস দিয়ে ধাওয়া করত, রাতে ভাত দিতো না,পানি দিতো না। কিছু খাওয়ার জন্য চাইলে দা,বটি, কিরিস দিয়ে সারা বাড়িতে বাড়িতে দৌড়াত এ মহিলা।এ জল্লাদ মহিলাটি বার বার ডিভোর্স চাইত,কিন্তু আমার বিদেশ ফেরত ভাইয়ের অর্থকড়ি স্বচ্ছল না থাকায়, দুইটি ছেলে-মেয়ের দিকে থাকিয়ে সংসার করত।

তিনি আরো বলেন, এ মহিলা বিভিন্ন ছেলের সাথে ইমুতে/ম্যাসেঞ্জারে স্থানীয় পর-পুরুষের সাথে ফোনে অশল্লীল কথা বলতো,ভিড়িও কলে বিভিন্ন ধরনের কু-কর্মে লিপ্ত ছিল। এসব কিছু আমার ভাইয়ের সামনেই করত,কিন্তু দুইটি অবুঝ সন্তানের দিকে তাকিয়ে আমার ভাই ডিভোর্স দিতে চাই নি। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

এ বিষয়ে স্থানীয় উঠতি ছেলেরা ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, প্রিয়া নামের মহিলাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক ম্যাসেঞ্জারে অনেক ছেলেদের সাথে কথা বলত, পরকিয়া প্রেম করত, স্বামীকে না বলে রিজার্ভ সিএনজি নিয়ে নানা জায়গায় ঘুরে বেড়াতো। স্বামী সেলিম এ বিষয়ে স্থানীয় মেম্বার-চেয়ারম্যান,থানা-পুলিশ আইন আদালতে দৌড়িয়ে এর কোন সুরহা-করতে পারেনি।

এ বিষয়ে সেলিমের স্ত্রী কুনছুমা সিদ্দিকা প্রিয়ার কাছে জানতে চাইলে,,তিনি নির্ধিদায় দোষ স্বীকার করেন প্রতিবেদকের কাছে।  নিহত সেলিমের বড় ভাই শাহাব উদ্দিন বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন।

পরে হাটহাজারী মডেল থানা পুলিশের এস আই আকরাম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল পর্যবেক্ষণ করে,লাশের সুরহতাল প্রতিবেদনের জন্য মর্গে পাঠানো হয়।

হাটহাজারী মডেল থানার ওসি মাসুদুল আলম বলেন,আমরা লাশটি কে মর্গে প্রেরণ করেছি।এবং বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলে জানান।

ঘটনা তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন, আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা - আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক) ফাউন্ডেশন। দোষী স্ত্রী মুনছুমা সিদ্দিকা প্রিয়াকে তদন্ত সাপেক্ষে শাস্তি ও দ্রুত বিচার দাবি জানাচ্ছেন ।

মন্তব্য

আপনার ইমেইল প্রচার করা হবে না.

All Replys